ঈদে কত লাখ সালামি পেয়েছেন তমা মির্জা? - জনতার আওয়াজ
  • আজ দুপুর ১:১১, শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

ঈদে কত লাখ সালামি পেয়েছেন তমা মির্জা?

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪ ৪:২৪ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: বৃহস্পতিবার, জুন ২০, ২০২৪ ৪:২৪ অপরাহ্ণ

 

বিনোদন ডেস্ক

ঈদ মানেই উৎসব, ঈদ মানেই আনন্দ। সেই আনন্দ আরও কয়েকগুন বাড়িয়ে দেয় সালামি। যেখানে বড়রা ছোটদের খুশি করতে সালামি উপহার দিয়ে থাকেন। বছরের পর বছর ধরে চলে আসছে এই রীতি।

অভিনেতা-অভিনেত্রীরাও বেশ মোটা অঙ্কের ঈদ সালামি পেয়ে থাকেন পরিচিতজনদের কাছ থেকে। সম্প্রতি অভিনেতা জায়েদ খান একটি ভিডিও প্রকাশ করেন নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে।

যেখানে দেখা যায়, অভিনেতা ডিপজলের কাছ থেকে টাকার বান্ডিল সালামি পেয়েছেন তিনি। শুধু জায়েদই নন, নায়িকারাও টাকার বান্ডিল সালামি পান। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তেমনটাই জানালেন তমা মির্জা।

ঈদের দিন কীভাবে কাটে জানিয়ে তমা বলেন, ‘ঈদের দিন তেমন কিছু করা হয় না। সন্ধ্যা বা রাতের দিকে বন্ধুদের বাসায় দাওয়াত থাকে, সেখানে যাওয়া হয়। এছাড়া আমি যেহেতু একজন পরিবারকেন্দ্রিক মানুষ, তাই দুপুরের দিকে পরিবারের সঙ্গে খাবার খাওয়ার চেষ্টা করি। পরিবারের সঙ্গে খাবার খাওয়ার মজাই আলাদা।’

জীবনে সর্বোচ্চ আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা ঈদ সালামি পেয়েছেন বলে জানান এই তারকা। তমা বলেন, ‘জীবনে সর্বোচ্চ সালামি পেয়েছি আড়াই থেকে তিন লাখ টাকা। এর বেশি কখনো পাইনি।’

ঈদের দিন ঝগড়া না হলে আমার মনে হয় ঈদই হলো না। সকালবেলা চেঁচামেচি শুনব— এখনো গোসল হয়নি, রেডি হয়নি, এখনো সবকিছু হয়নি, এসব কিন্তু আমার বেশ ভালো লাগে- যোগ করেন তমা মির্জা।

শৈশবের ঈদের স্মৃতিকথা মনে করে নায়িকা বলেন, ছোটবেলার ঈদগুলোই মজার ছিল। ওই সময় অনেক কিছু বুঝতাম না, দায়িত্বও ছিল না। আর এখন উৎসব মানেই খরচ— এইটা লাগবে, ওইটা লাগবে।’

উল্লেখ্য, ‘বলো না তুমি আমার’ সিনেমার মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তমা মির্জার। সেই সঙ্গে বেশ কিছু সিনেমায় পার্শ্বনায়িকা হিসেবেও অভিনয় করেছেন তমা মির্জা। এ ছাড়া ‘ও আমার দেশের মাটি’ সিনেমায় নায়িকা চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন তিনি। ২০১৫ সালে এসে ‘নদীজন’ সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন তার বড় পাওয়া।

সবশেষ তমাকে দেখা গেছে আফরান নিশোর বিপরীতে ‘সুড়ঙ্গ’ সিনেমায়। এই ছবিতে তমার অভিনয় দর্শকমহলেও বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছে।

ঢাকাই চিত্রনায়িকা তমা মির্জা। বর্তমানে অন্যতম শীর্ষ নির্মাতা রায়হান রাফি সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা প্রকাশ্যে। যদিও তাদের মধ্যে প্রেমের গুঞ্জন ছিল অনেক আগে থেকেই।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী তমা মির্জাকে তাদের সম্পর্কের বিষয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। আলোচনা করা হয় ব্যক্তিজীবনে তমার প্রেম ও বিয়ে প্রসঙ্গেও।

ভালোবাসা কেমন চলছে অভিনেত্রীর- উত্তরে তমা বলেন, ‘ভালোবাসা তো সুন্দর জিনিস, খুনশুটির জিনিস। ভালোবাসা বিশ্বাসের জিনিস, আস্থার জিনিস। সব মিলিয়ে ভালোই চলছে।’

এ সময় সাক্ষাৎকারে রাফির প্রসঙ্গ টানতেই একরকম এড়িয়ে যাওয়ারই চেষ্টা করছিলেন তমা। অভিনেত্রীর চালচলনে স্পষ্ট ছিল যে, বিষয়টি নিয়ে তিনি কিছু বলতে নারাজ। রায়হান রাফির সঙ্গে তমার কী সম্পর্ক- এমন প্রশ্ন মজার চলে গ্রহণ করে অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি কানে শুনতে পাচ্ছি না।’

যদিও রায়হান রাফি ও তমা মির্জা তাদের রসায়নকে এতদিন ‘জাস্ট ফ্রেন্ড’ বলে আখ্যা দিয়ে আসছিলেন। তাদের ভক্ত অনুরাগীরাও মনে করেন, রাফিকে শুধু বন্ধুই ভাবেন তমা। আবার নেটিজেনরা বলছেন, তমা শুধুমাত্র রাফিকে ব্যবহার করছে।

কিন্তু ইদানিং রায়হান-তমার খুনশুটি প্রকাশ্যে আসার পর অনেকে ধরেই নিয়েছে তমার সেই স্বপ্নের মানুষটিই রায়হান রাফি। এদিকে তমাও জানিয়ে দিয়েছেন, তিনি তার স্বপ্নের মানুষটি পেয়ে গেছেন, তাই এখন আর নতুন করে সেটি খুঁজতে চান না। অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘এখন আর স্বপ্নের মানুষটিকে নিয়ে কিছু বলার নেই। আর খুঁজতেও চাই না।’

রায়হান রাফি তার বন্ধু, না কী বন্ধুর চেয়ে বেশি- সাক্ষাৎকারে এমন প্রশ্নে হাসির ছলে তমা বলেন, ‘বলবো না।’

কাউকে ছ্যাঁকা দিয়েছেন কী না- এ প্রসঙ্গে অভিনেত্রী বলেন, ‘কাউকে যদি মনে হয় সম্পর্কে জড়াতে চাই না, সুন্দরভাবে বলার চেষ্টা করেছি, বোঝানোর চেষ্টা করেছি। এরপর যদি কোনো একটা ইতিহাস হয়ে যায়, তাহলে অন্য পক্ষের দোষ।’

এদিকে নিজের বিয়ে প্রসঙ্গে তমা জানান, এখনও বিয়ের জন্য কিছু ভাবছেন না তিনি।

এর আগে এই রায়হানের ‘সুড়ঙ্গ’ সিনেমার নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসেন তমা মির্জা। শুরু হয় রায়হান রাফি ও তমা মির্জার রসায়ন নিয়ে জল্পনা-কল্পনা। সম্প্রতি তমার জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে তমাকে নিজের জীবনে পেয়ে ‘ভাগ্যবান’ বলে দাবি করেন রাফি। উত্তরে রাফিকে পেয়েও নিজেকে ভাগ্যবান দাবি করেন তমা মির্জা। এরপর থেকেই রায়হান-তমার প্রেম একে একে প্রকাশ্যে আসতে থাকে।

উল্লেখ্য, এম বি মানিকের ‘বলো না তুমি আমার’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ২০১০ সালে তমা মির্জা চলচ্চিত্রে অভিষিক্ত হন। বেশ কিছু চলচ্চিত্রে পার্শ্ব নায়িকা হিসেবে অভিনয় করেন।

অনন্ত হীরা পরিচালিত ‘ও আমার দেশের মাটি’ চলচ্চিত্রে নায়িকা হিসেবে অভিনয় করে আলোচিত হন তিনি। ২০১৫ সালে শাহনেওয়াজ কাকলী পরিচালিত ‘নদীজন’ চলচ্চিত্রে পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ