খেলা হবে-এর বিপরীতে তারেক রহমানের সুস্থ ধারার রাজনীতি – জনতার আওয়াজ
  • আজ বিকাল ৩:৩৩, বুধবার, ৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ২৫শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪৪ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

খেলা হবে-এর বিপরীতে তারেক রহমানের সুস্থ ধারার রাজনীতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২ ৪:০০ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৬, ২০২২ ৪:০০ অপরাহ্ণ

 

আমিরুল ইসলাম কাগজী
আগামী ১০ই ডিসেম্বর ঢাকায় বিএনপির গণসমাবেশ সামনে রেখে সরকার সারাদেশে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করে দিয়েছে। ঢাকার মহাসমাবেশ যাতে সফল না হয়, লোকসমাগম যাতে সঠিকভাবে না করা যায় সেই লক্ষ্য সামনে রেখে ইতোমধ্যে যুবদলের সভাপতি সুলতান সালাহউদ্দীন টুকুসহ এ পর্যন্ত সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে। গণসমাবেশের লিফলেট বিতরণ করার সময় পুরান ঢাকায় বিএনপি নেতা ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালানো হয়েছে।
আবার পুলিশের বিশেষ অভিযানের কারণে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে। সতর্কাবস্থায় থেকে তারা কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। অনেকেই নিজেদের বাসাবাড়িতে থাকতে না পেরে অবস্থান করছেন বিভিন্ন আবাসিক হোটেল ও মেসসহ আত্মীয়স্বজনদের বাসায়। শনিবার থেকে রাজধানীর বিভিন্ন হোটেল ও মেসে একযোগে অভিযান চালায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ-ডিএমপি। খবর শুনলাম বিএনপির নারী নেতাকর্মীদের রাখার জন্য কেরানীগঞ্জে কেন্দ্রীয় কারাগারে নারী ইউনিট উদ্বোধন করা হয়েছে।
এতসব ভয়ভীতি ত্রাস সৃষ্টি করে সরকার কি ঢাকার গণসমাবেশ পণ্ড করতে পারবে? বিগতদিনে চট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, খুলনা, রংপুর, বরিশাল, ফরিদপুর, সিলেট, কুমিল্লা এবং রাজশাহীতে গণসমাবেশ কি ঠেকানো গেছে? সরকার এসব জায়গায় যানবাহন বন্ধ করেও লোকসমাগম রোধ করতে পারেনি। বরং উল্টো কেস হয়েছে। সকল বাধা উপেক্ষা করে মানুষ দুদিন তিনদিন আগে থেকে সমাবেশ স্থলে উপস্থিত হয়েছে। একদিনের সমাবেশ তিনদিনের উৎসবে পরিণত হয়েছে। এবারের সমাবেশগুলোতে বিএনপির নেতাকর্মী ছাড়াও সর্বস্তরের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে যোগ দিয়েছে। কারণ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যে জর্জরিত মানুষ সরকারের ওপর ক্ষুব্ধ। মতপ্রকাশের স্বাধীনতা থেকে বঞ্চিত মানুষ তাদের ক্ষোভ প্রকাশের কোনো যথাযথ প্লাটফর্ম এতদিন পাচ্ছিলো না। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান এবার জনগণের সেই কাঙ্খিত ভোট ও ভাতের অধিকার ফিরিয়ে দিতে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলন শুরু করেছেন।
এর বিপরীতে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এখন প্রতিটি সভাসমাবেশে বলে বড়াচ্ছেন, ‘খেলা হবে, খেলা হবে’। এটা যেন তার একটা শ্লোগানে রূপ নিয়েছে যদিও সেটা নারায়ণগঞ্জের শামীম ওসমানের কাছ থেকে ধার করা। শ্লোগানটি পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা মুখার্জীর কন্ঠ সফর করে আবার বাংলাদেশে এসে ওবায়দুল কাদেরের কাঁধে সওয়ার হয়েছে। তার এই বক্তব্য দলটির শীর্ষ নেতা শেখ হাসিনা অপছন্দ করেছেন বলে আমার মনে হয়নি। তিনি যদি অপছন্দ করতেন তাহলে নিশ্চিত বলা যায় ওবায়দুল কাদের এই শ্লোগান আর দিতেন না। তবে ওবায়দুল কাদেরের এই শ্লোগান শুনে দলটির প্রবীণ রাজনীতিবিদ তোফায়েল আহমেদ বলতে বাধ্য হয়েছেন ‘খেলা হবে’ কোনো রাজনীতির ভাষা হতে পারে না।
পোড় খাওয়া নেতা তোফায়েল আহমেদের এই বক্তব্য থেকে আমার ব্যক্তিগত অভিমত, খেলা হবে-এর অর্থ ফুটবল, ক্রিকেট কিংবা দাবা খেলার মতো নির্মল আনন্দদায়ক কোনো খেলা নয়। এর মধ্যে সন্ত্রাসের গন্ধ আছে, মারামারি, পিটাপিটির ইঙ্গিত আছে, হাঙ্গামা করার একটা দূরভিসন্ধি আছে।
তারেক রহমান এই ‘খেলা হবে’ শ্লোগানের বিপরীতে একটি সুস্থ ধারার রাজনীতি উপহার দেওয়ার জন্য দেশের শান্তিপ্রিয় মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার লক্ষ্য নিয়ে বিভাগীয় শহরগুলোতে গণসমাবেশ করেছেন। তাতে সাড়া মিলছে অভূতপূর্ব, যা দেখে সরকারি মহলের কর্তাব্যক্তিদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। সেজন্য ঢাকার মহাসমাবেশ বানচাল করার জন্য কখনও বলা হচ্ছে বেশি বাড়াবাড়ি করলে হেফাজতের মতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আবার বলা হচ্ছে বাড়াবাড়ি করলে বেগম খালেদা জিয়াকে ফের জেলখানায় পাঠিয়ে দেওয়া হবে। অর্থাৎ কিসের আইন, কিসের আদালত, আমি যা বলবো, সেটাই আইন, সেটাই আদালত, যেমনটি বলতেন ফরাসি রাজা চতুর্দশ লুই, ‘আই অ্যাম দ্য স্টেট’। পরবর্তিতে তার ফ্যাসিবাদী কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিকতায় ষোড়শ লুই এর পরিণতি দেখেছে বিশ্ব, ইতহাসের এক কলঙ্কজনক অধ্যায় হিসাবে চিহ্নিত সে কাহিনী।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com