শতকোটি টাকার বাড়ি বানাই ইনকাম ট্যাক্সের ফাইলে দশ টাকাও নাই : শামীম ওসমান - জনতার আওয়াজ
  • আজ সন্ধ্যা ৬:৩১, শনিবার, ২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২১শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

শতকোটি টাকার বাড়ি বানাই ইনকাম ট্যাক্সের ফাইলে দশ টাকাও নাই : শামীম ওসমান

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: বৃহস্পতিবার, মার্চ ৩, ২০২২ ৩:১১ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: বৃহস্পতিবার, মার্চ ৩, ২০২২ ৩:১১ অপরাহ্ণ

 

এম আর কামাল, স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী সংসদ সদস্য শামীম ওসমান বলেছেন, আমার সন্তানদের যদি আমি মিথ্যা বলি আমি যেমন ছোট হয়ে যাবো একজন বাবা হিসেবে। তেমনি আপনাদের মিথ্যা কথা বললে আমি নিজেকে মাফ করতে পারব না। আমি দেখি সামনে আপনাদের ভবিষ্যত এত সুন্দর না। সামনের ভবিষ্যত অনেক লড়াইয়ের। এর ভেতর শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক যুদ্ধ। হাঁটি হাঁটি করে এ দেশ জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দাঁড়াচ্ছিল। ১৭ মার্চ জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী। শেখ হাসিনা এ দেশের হাল ধরেছিলেন, তার কিছু ছিল না। আমরা মাথা তুলে দাঁড়ালাম জিডিপি আট হয়ে গেল। করোনায় ধাক্কা খেলাম, এখন আবার যুদ্ধ। মানুষ বাঁচানোর চেয়ে মানুষ মারার জন্য বেশি অর্থ খরচ হয়।
বৃহস্পতিবার (৩ মার্চ) নারায়ণগঞ্জ সরকারি তোলারাম কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন তিনি।
এমপি বলেন, নটাঙ্কি দেখতে দেখতে আর ভাল লাগে না। রাজনীতি ব্যবসা হয়ে গেছে। শতকোটি টাকার বাড়ি বানাই ইনকাম ট্যাক্সের ফাইলে দশ টাকাও নাই। এনবিআর কি করে জানি না, দুদক নামের কোন বস্তু আছে তাও চিনি না। ভাল ভাল সব লোক বসা সেখানে। দেশের সবচেয়ে দামী দামী লোক বসা সেখানে। তদন্ত তো দেখি না। মুখ খুলতে চাই না, সময় হলে মুখ খুলবো।
তিনি বলেন, আমি সিটি করপোরেশনের কাছে অনুরোধ করবো আপনারা মানুষের ট্যাক্সের পয়সায় চলেন। তোলারাম কলেজের মাটিতে হাত দিবেন না। নারায়ণগঞ্জ কেন দেশের কোথাও যদি কোন ছাত্রের গায়ে হাত উঠলে নারায়ণগঞ্জের ছাত্ররা চাড়া কাপিয়ে দিয়েছে। নারায়ণগঞ্জে কিছু মুখোশ উন্মোচন করা দরকার। যারা কথা বলেন, হিসেব করে কথা বলবেন। কারন আমি যদি মুখ খুলি তাহলে লজ্জায় মুখ ঢাকতে পারবেন না।
তিনি বলেন, নবীন বরণ একটা আনন্দের দিন। আমি এদিনে আপনাদের মিথ্যা আশ্বাস দিতে চাই না। সাতাশ হাজার ছাত্র পড়ে এ কলেজে। এটুকু একটা জায়গা, এটা কি তোলারাম বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের মাঠ হওয়ার যোগ্য। আমাদের চাহিদার শেষ নেই কিন্তু দিতে পারছিনা কিছু। পঞ্চাশ শতাংশ ছাত্রেরও বসার জায়গা নেই এখানে। জীবনের এসময়ে এসে এটা অস্বীকার করলে মিথ্যা বলা হবে।
তিনি আরো বলেন, আমাদের স্বার্থ একটাই, আপনাদের সুন্দর ভবিষ্যত। আমরা যৌবন কৈশর দেখিনি কারন জাতির পিতাকে হত্যা করা হয়েছিল। আমরা বলি না আপনারা ছাত্রলীগ করেন, দেশটাকে তো ভালবাসবেন। আমি নারায়ণগঞ্জে ছাত্রলীগ দেখি না, তারুণ্য দেখি না। যখন গরিবের পেটে লাথি মারা হয় শ্রমিকের পেটে লাথি মারা হয়, কোথায় থাকে ছাত্র সমাজ। আমি বড় হয়েছি, এখন যৌবন যার যুদ্ধে যাওয়ার শ্রেষ্ঠ সময় তার, এখন যৌবন যার মিছিলে যাওয়ার শ্রেষ্ঠ সময় তার। আমি এই কবিতা পড়ে অভ্যস্ত।
শামীম ওসমান বলেন, আমি সাহস দেখে অবাক হই, এরশাদ সাহেবের বউ রওশন এরশাদ তোলারাম কলেজের জায়গা দখল করতে আসলেন, সেনাবাহিনী ও পুলিশ আসল। এক ইঞ্চি জায়গা দখল করতে পারেনি। আজকে আমরা দেখি সিটি করপোরেশন এসে তেলারাম কলেজের জায়গা দখল করে পানির মটর লাগাতে চায়। কি করবো বলেন, পানির মটর লাগাতে দিব, না বিল্ডিং করবো। আস্তে আস্তে ফিস ফিস করে কথা বললে কাজ হবে না। ছাত্র সমাজ ফিস ফিস করে কথা বললে জীবনেও সামনে এগুতে পারবেন না। আপনাকে প্রমান করতে হবে, আপনি যে ছাত্র।
তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের পটপরিবর্তন করেছে ছাত্রসমাজ। আপনারা কেমন যেন মিনমিনে হয়ে যাচ্ছেন। আপনি ফেসবুকে চ্যাটিং করেন সমস্যা নেই। তবে ডু সামথিং ফর ইওর কান্ট্রি। শামীম ওসমান অন্যায় করলে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো আপনাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমি কোন রাজনৈতিক দলের কথা বলব না, সকল ছাত্রদের এক প্লাটফর্মে আসতে বলব।
এই পরিসরে নবীন বরণ হয় না। আমি রিয়াদসহ সকলকে অনুরোধ করবো, দ্রুত আলোচনা করুন। একেএম শামসুজ্জোহার স্টেডিয়ামে নারায়ণগঞ্জের সকল কলেজের নবীন বরনের আয়োজন করেন। যা কিছু লাগে আমি করবো। সেদিন নারায়ণগঞ্জকে জানান দিবেন বাংলাদেশকে জানান দিবেন আমরা ছাত্ররা ঐক্যবদ্ধ। আমরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করবো।
শামীম ওসমান এমপি বলেন, আপনাদের কাছে বিচার দিচ্ছি, তিন বছর ধরে চেষ্টা করে নারায়ণগঞ্জের সকল বড় বড় প্রকল্প এনেছি। প্রায় আটশ কোটি টাকা ব্যয়ে শেখ কামাল আইটি ইনিস্টিউট হবে। আমার স্বপ্ন ছিল দুটো প্রজেক্টের। আমার মা শেখ হাসিনার কাছে আমি নারায়ণগঞ্জের চাহিদাগুলো বললাম। তিনি বললেন আর কিছু চাও না, আমি বললাম না। আমি বললাম এ কাজগুলো করতে চাই যেন মানুষ আমাকে মনে রাখে। আমি যা যা চেয়েছি তা তা উনি দিয়েছেন। ডিও লেটার দিলাম আমি, কথা বললাম আমি, ভিক্ষা চাইলাম আমি। তবে কিছু কুচক্রী মহল এটাকে এমন জায়গায় দূরে নিতে চায় এ এলাকার মানুষের যাওয়া সম্ভব নয়। আমি বলেছিলান এ প্রতিষ্ঠান ঢাকা নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে হবে। এখন এটাকে এখান থেকে সরানোর চেষ্টা হচ্ছে। এই চেষ্টা হলে আমি রাস্তায় নামব। যেখানে চেয়েছি সেখানে এটা হতে হবে। যারা সরাতে চাচ্ছেন শুনেন, তোলারাম কলেজের ছাত্রছাত্রীরা একাই নারায়ণগঞ্জের নক্ষত্র বদলিয়ে দিতে পারে।
এসময় নারায়ণগঞ্জ জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি (শামীম ওসমানের স্ত্রী) সহ কলেজের অধ্যক্ষ শিক্ষক শিক্ষিকা, শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ