৪ দফা দাবিতে রাজধানীতে এবি পার্টির বিক্ষোভ - জনতার আওয়াজ
  • আজ রাত ৯:১৭, শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

৪ দফা দাবিতে রাজধানীতে এবি পার্টির বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: শনিবার, জুলাই ৬, ২০২৪ ১১:১৪ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: শনিবার, জুলাই ৬, ২০২৪ ১১:১৪ অপরাহ্ণ

 

জনতার আওয়াজ ডেস্ক
সার্বভৌমত্ব ক্ষুণ্নকারী একতরফা রেল করিডোর দেওয়ার প্রতিবাদ, কোটা ব্যবস্থা বাতিল ও ডামি সরকারের পদত্যাগসহ ৪ দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে আমার বাংলাদেশ (এবি) পার্টি।

শনিবার (৬ জুলাই) বিকেলে রাজধানীর বিজয়নগরস্থ বিজয়-৭১ চত্বরে এই কর্মসূচি পালিত হয়।

এসময় দলটির বক্তারা বলেন, রেল ট্রানজিটের নামে করিডোর প্রদান করে দেশের সার্বভৌমত্ব ক্ষুণ্ন করা হলে এবং বৈষম্যমূলক কোটা পুনঃপ্রবর্তনের মাধ্যমে ’৭১ পূর্ব পাকিস্তানি বৈষম্য বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করা হলে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধ অনিবার্য হয়ে যাবে।

এবি পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনারের সভাপতিত্বে ও দপ্তর সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন রানার সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম ও বিএম নাজমুল হক, সদস্যসচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, যুগ্ম সদস্যসচিব ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, কেন্দ্রীয় নেতা কর্নেল (অব.) দিদারুল আলম, সহকারী সদস্যসচিব ও ঢাকা মহানগর উত্তরের আহ্বায়ক আলতাফ হোসেইন, যুব পার্টির আহ্বায়ক শাহাদাতুল্লাহ টুটুল ও কেন্দ্রীয় সদস্য এনামুল হক প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে মেজর (অব.) মিনার বলেন, বিনা বাধায়, অবৈধভাবে ক্ষমতা দীর্ঘায়িত করার লক্ষ্যেই সরকার দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্বের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে একতরফাভাবে করিডোর দিয়েছে। এই ডামি সরকার মুক্তিযুদ্ধের মুল চেতনা বৈষম্যহীন বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যকে ভূলুণ্ঠিত করে, আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে আবার নতুন করে কোটা প্রথা চালু করতে চাইছে। যা ছাত্রসমাজের আন্দোলনের মাধ্যমে বাতিল করা হয়েছিলো। নিজেদের অবৈধ ক্ষমতা ধরে রাখতেই এই সরকার আজিজ, বেনজিরদের মতো চোরদের জন্ম দিয়েছে বলে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম বলেন, জনগণের সম্পদ লুটপাটকারীদের সুবিধা দিয়ে আওয়ামী লীগ ক্ষমতা আরও দীর্ঘায়িত করতে চায়। ডামি সরকারের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে এবং গণতন্ত্র উদ্ধার করে দেশকে এই ফ্যাসিবাদীদের কবল থেকে মুক্ত করতে হবে।

মজিবুর রহমান মঞ্জু বলেন, একটা সাধারণ রিক্সা ওয়ালার সঙ্গেও আমরা ভাড়া এবং গন্তব্য স্থান নিয়ে মৌখিক চুক্তির ভিত্তিতে রিক্সায় চড়ি। কিন্তু কীসের বিনিময়ে সরকার রেল, স্যাটেলাইট ও সামরিক চুক্তি করল তা জনগণ কিছুই জানে না। তিনি রেল ট্রানজিটের নামে একতরফা করিডোর প্রদান করে দেশের সার্বভৌমত্ব ক্ষুণ্ন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, কানেকটিভিটির কথা বলে ভারত আমাদের দেশের ভেতর দিয়ে ট্রেনে করে তার এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে চলাচল করতে চাইলে বাংলাদেশের জনগণ কেন ভারতের মধ্যদিয়ে সড়কপথে নেপাল, ভুটান ও চীনে যাতায়াতের রাস্তা পাবে না?

ব্যারিস্টার ফুয়াদ বলেন, অতীতে আমরা দেখছি সেতু বা বড় প্রকল্পের কাজ শুরু করার সময় জাঁকজমক উদ্বোধনের নামে দেশের প্রচুর অর্থ অপচয় ও লুটপাট করা হয়। এবার পদ্মা সেতুর প্রকল্প সমাপনীর নাম করে সরকার নতুন উৎসব ও লুটপাটের নিয়ম চালু করেছে। যখন বৃহত্তর সিলেট ও রংপুর বিভাগের বিভিন্ন জেলার মানুষ বন্যায় বিপর্যস্ত সে সময় প্রকল্প সমাপনীর উৎসবে শত শত কোটি টাকা অপচয় ও লুটপাটের মাধ্যমে এই সরকার প্রমাণ করেছে জনগণ মরলে তাদের কিছু আসে যায় না।

তিনি জনগণকে লুটপাটের বিরুদ্ধে সোচ্চার হবার আহ্বান জানিয়ে বলেন, স্বাধীনতার স্বপ্ন হত্যা করতে দেওয়া যাবেনা। আওয়ামী মীরজাফর ও ঘসেটি বেগমদের আমরা কখনও ক্ষমা করবো না।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন এবি পার্টির সিনিয়র সহকারী সদস্যসচিব আব্দুল বাসেত মারজান, সহকারী সদস্যসচিব শাহ আব্দুর রহমান, ইঞ্জিনিয়ার আলমগীর হোসেন, এম আমজাদ খান, হাদীউজ্জামান খোকন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের যুগ্ম আহ্বায়ক গাজী নাসির, আব্দুল হালিম খোকন, উত্তরের সদস্যসচিব সেলিম খান, দক্ষিণের যুগ্ম সদস্যসচিব সফিউল বাসার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মশিউর রহমান মিলু, আমেনা বেগম, রুনা হোসাইন, অ্যাডভোকেট তারেক আব্দুল্লাহ, ইকবাল হোসাইন, ফেরদৌসী আক্তার অপি, শরণ চৌধুরী, রিপন মাহমুদ, জামিল আব্দুর রব, আমান উল্লাহ সরকার রাসেল, পল্টন থানা আহ্বায়ক মুন্সি আব্দুল কাদের, সিএম আরিফসহ কেন্দ্রীয় ও মহানগরীর বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ