কমরেড আলাউদ্দিনের রাজনীতির লক্ষ্য ছিল গণমানুষের মুক্তি : মোস্তফা ভুইয়া - জনতার আওয়াজ
  • আজ সকাল ৯:৫৯, মঙ্গলবার, ২১শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৩ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

কমরেড আলাউদ্দিনের রাজনীতির লক্ষ্য ছিল গণমানুষের মুক্তি : মোস্তফা ভুইয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: রবিবার, মার্চ ১৩, ২০২২ ৮:০৭ পূর্বাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: রবিবার, মার্চ ১৩, ২০২২ ৮:০৭ পূর্বাহ্ণ

 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
রাজনীতির মূল্য উদ্দেশ্য থাকতে হবে সুশাসন প্রতিষ্ঠা এবং দেশ-জাতির কল্যানে কাজ করা। মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর অনুসারী ও সহযোদ্ধা কৃষক নেতা কমরেড আলাউদ্দিন আহমেদের রাজনীতির লক্ষ্য ছিল গণমানুষের মুক্তি বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া।

তিনি বলেন, কমরেড আলাউদ্দিন আহমেদ সারা জীবন গণমানুষের মুক্তির লক্ষ্যেই কাজ করে গেছেন। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের পুরাটাই ক্ষমতার বাইরে থাকলেও জনগনের জন্য কাজ করতে ভুলেন নাই।

রবিবার (১৩ মার্চ) নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিরনায়তনে প্রখ্যাত কৃষক নেতা কমরেড আলাউদ্দিন আহমেদের ১৯তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে স্বপন স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আদর্শহীন মানুষ নিয়ে ক্ষমতায় গেলেও দেশের কোন কল্যাণ হয় না, হবেও না। ব্যক্তিগত স্বার্থ উদ্ধার হতে পারে। তারা দেশের বা দেশের জনগণের মঙ্গলের পরিবর্তে রাজনৈতিক পরিচয় ব্যবহার করে ব্যক্তি কল্যাণ বা স্বার্থ উদ্ধারে ব্যতিব্যাস্ত থাকে। জনসাধারণের স্বপ্নের শোষণহীন সমাজ এবং অর্থনৈতিক মুক্তির সংগ্রামে কমরেড আলাউদ্দিন আহমেদ ছিলেন নিবেদিত।

তিনি বলেন, সারা দেশে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বেড়েই চলছে, বাজারের আগুনে পুড়ছে সাধারণ মানুষ। অভাব ও দারিদ্র্যের কশাঘাতে আজকের জনজীবন দুঃখ ও হাহাকারে পূর্ণ। মানুষের ওপর চেপে বসেছে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির ঘোটক। জীবনধারণের প্রয়োজনীয় প্রতিটি দ্রব্য অগ্নিমূল্য। চাল-ডাল-তেল, তরিতরকারি, ফলমূলসহ প্রায় প্রতিটি দ্রব্যের মূল্য আগের তুলনায় কয়েকগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে খেটে খাওয়া মেহনতি মানুষের নাভিশ্বাস উঠেছে। এই মুহুর্তে লুটেরা শাসকগোষ্টির বিরুদ্ধে গণসংগ্রাম গড়ে তুলতে কমরেড আলাউদ্দিন আমাদের অনুপ্রেরনার উৎস।

তিনি আরো বলেন, বৈষম্যহীণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় কমরেড আলাউদ্দিন সংগ্রম করেছেন। তার সেই সংগ্রামের পথ ধরেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। যাদের কারণে বাংলাদেশ, আজ শাসকগোষ্টি ইতিহাস থেকে তাদের মুছে ফেলতে চাচ্ছে। মওলানা ভাসানী-কমরেড আলাউদ্দিনদের স্মরণ করতে হবে আগামী বাংলাদেশকে রক্ষার জন্যই। তাদের প্রদর্শিত পথে দেশের পতাকা-মানচিত্র রক্ষায় জাতিকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

স্বপন স্মৃতি পরিষদ আহ্বায়ক রফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ লেবার পার্টি চেয়ারম্যান হামদুল্লাহ আল মেহেদী, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ন্যাপ ভাইস চেয়ারম্যান স্বপন কুমার সাহা, যুগ্ম মহাসচিব মো. মহসীন ভুইয়া, শ্রমিক নেতা হাবিবুর রহমান, বাদল দাস প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম বলেন, কমরেড আলাউদ্দিন ছিলেন মাটি মানুষের নেতা। মওলানা ভাসানীর নেতৃত্বে তিনি গণমানুষের মুক্তির জন্য আজীবন লড়াই করে গেছেন। আমাদের স্বার্থে, আগামী প্রজন্মের স্বার্থেই মওলানা ভাসানী-অলি আহাদ-ভাষা মতিন-কমরেড আলাউদ্দিনদের স্মরণ করতে হবে।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com