যারা সরকারে আছে, তারা গায়ের জোরে সরকারে আছে : মোশারেফ হোসেন - জনতার আওয়াজ
  • আজ ভোর ৫:৫৫, বুধবার, ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

যারা সরকারে আছে, তারা গায়ের জোরে সরকারে আছে : মোশারেফ হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: বুধবার, মার্চ ১৬, ২০২২ ১:৩৩ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: বুধবার, মার্চ ১৬, ২০২২ ১:৩৩ অপরাহ্ণ

 

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ড.খন্দকার মোশারেফ হোসেন বলেছেন, আজকে যারা সরকারে আছে, তারা গায়ের জোরে সরকারে আছে। ২০০৮ সালে মইনুদ্দিন-ফখরুদ্দিনের অবৈধ সরকার তাদেরকে গায়ের জোরে বসিয়ে দিয়েছে। ২০১৪ সালে জনগণ বয়কট করেছে। আজকে যারা আছে তারা বয়কটের সরকার। ২০১৮ সালে দিনের ভোট রাতে ডাকাতি করেছে। ভবিষ্যতে চিন্তা করতেছে ইভিএমের মাধ্যমে নিয়ে যাবে। আর এ দেশে এ ধরনের নির্বাচন হতে দেয়া যাবেনা। এ সরকারকে হটানো ছাড়া জনগণ সষ্ঠুভাবেে তাদের ভোট দিতে পারবেনা, জনগণ তাদের স্বাধীনমত প্রকাশ করতে পারবে না। এরা সরকারে থাকবে আর জনগণ স্বাধীনভাবে, সুুুুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পারবে এমন নির্বাচন আশা করতে পারেন না এ দেশের জনগণ।

আজ বুধবার দুপুরে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক আইন মন্ত্রী ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদের স্বরণ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মোশারেফ বলেন, মওদুদ আহমদ ১৫টি বই লিখেছেন। আরও দুটি বই প্রকাশিত হওয়ার বাকী আছে। তিনি বাস্তব ভিত্তিতে দেশের রাজনীতি, গণতন্ত্র নিয়ে তিনি এসব বই লিখেছেন। তাকে এ সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় তাঁর বাড়ি থেকে তাকে উচ্ছেদ করেছে। এ সরকার তাকে একটার পর একটা একটা মামলা দিয়েছে। ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমদ নির্বাচনে প্রতিযোগিতা করেছে ওনার।নির্বাচনের দিন তার মতাে মানুষকে বাড়ি থেকে বের হতে দেয় নাই।

তিনি বলেন, দ্রব্যমূল্য মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে গেছে। যদি সরকার দ্রব্যমূল্য কমাতে না পারে, দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিতে না পারে,অনতিবিলম্বে তাদের পদত্যাগ করতে হবে। আর তা না হলে, এ দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ সরকারকে হটিয়ে দেওয়ার জন্য আগামী দিন পদক্ষেেপ গ্রহণ করবে। কোন স্বৈরাচার নিজে থেকে যায়না। তাদেরকে বিদায় করে দিতে হয়। আমেরিকাতে একটি গণতান্ত্রিক কনভেনশন হয়েছে। ১৪১টি দেশ সেখানে আমন্ত্রিত হয়েছে। বাংলাদেশ সেখানে আমন্ত্রণ পায়নি। কেন পায় নাই? তারা মনে করে বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। তারা বরং আন্তর্জাতিক ভাবে বলেছে বাংলাদেশ পরিচালনা করছে একটি হাইব্রিড সরকার,গণতান্ত্রিক সরকার নয়।

খন্দকার মোশারেফ আরও বলেন, এ সরকার জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকার জন্য গুম,খুন,মিথ্যা মামলা দিচ্ছে বিরোধী নেতাকর্মিদের বিরুদ্ধে। আজকে কিন্তু বিশ্ব এ সরকারের বিরুদ্ধে রায় দিয়েছে। যে এরা মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে। যার জন্য বাংলাদেশের একটি প্রতিষ্ঠানকে তারা আমেরিকা থেকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। বাংলাদেশের কয়েকটি বড় বড় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাকে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এটা আমাদের জন্য লজ্জাজনক। এটা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। এটার জন্য দায়ী আজকে যারা গায়ের জোরে থাকা সরকার। শুধু গায়ের জোরে সরকারে টিকে থাকার জন্য এ গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। সকল প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করে শেষ করে দিয়েছে। বিচার বিভাগকে শেষ করে দিয়েছে। আজকে দেশের মানুষ শান্তিতে নেই।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব মাহমুদুর রহমান রিপনের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল আউয়াল মিন্টু, নোয়াখালী-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মওদুদ আহমদেেে সহর্ধমীনি হাসনা জসীম উদ্দীন মওদুদ, সাবেক বিরোধী দলীয় চীফ হুইফ জয়নাল আবদিন ফারুক প্রমুখ।

এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন, চর হাজারী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বসুরহাট পৌরসভা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য জামাল উদ্দিন টিপু।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ