সার্কাসের অনেক খেলা আমাকে খেলতে হয়েছে: জয়া আহসান – জনতার আওয়াজ
  • আজ রাত ২:৫১, বুধবার, ৫ই অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ২০শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৪ হিজরি
  • jonotarawaz24@gmail.com
  • ঢাকা, বাংলাদেশ

সার্কাসের অনেক খেলা আমাকে খেলতে হয়েছে: জয়া আহসান

নিজস্ব প্রতিবেদক, জনতার আওয়াজ ডটকম
প্রকাশের তারিখ: রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২ ১:৪২ অপরাহ্ণ পরিবর্তনের তারিখ: রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২২ ১:৪২ অপরাহ্ণ

 

বহুল প্রতিক্ষার পর অবশেষে মুক্তি পাচ্ছে মাহমুদ দিদারের প্রথম চলচ্চিত্র ‘বিউটি সার্কাস’। ৫১ বছরের বাংলাদেশে এটাই সার্কাস নিয়ে প্রথম কোনও সিনেমা। যা ২৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাচ্ছে প্রেক্ষাগৃহে।

ছবিটির প্রধান চরিত্র বিউটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান। ছবিটিতে কাজ করার অভিজ্ঞতাকে ‘না বুঝে রোলার কোস্টারে উঠে বসা’র সঙ্গে তুলনা করেছেন এই অভিনেত্রী।

১৭ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি অডিটোরিয়ামে হয়ে গেলো মিট দ্য প্রেস। যেখানে জয়া ছাড়াও ছবিটি প্রসঙ্গে প্রাণখুলে কথা বলেন নির্মাতা মাহমুদ দিদার, কণ্ঠশিল্পী সুমি, অভিনেতা ফেরদৌস ও এবি এম সুমন।

জয়া আহসান বলেন, ‘এই ছবিটি করতে গিয়ে আমি অসাধারণ কিছু অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হয়েছি। এখানে সার্কাসের অনেক খেলা আমাকে খেলতে হয়েছে। সেগুলো অনেক রিস্কি ছিলো। অথচ এসব না ভেবে চরিত্রের মোহে আমি কাজগুলো কিভাবে কখন করে ফেলেছি, টেরই পাইনি। এখন মনে হচ্ছে বিষয়টি ছিলো অনেকটা না বুঝেই রোলার কোস্টারে চড়ে বসার মতো!’

কাজটি করতে গিয়ে অনেক রকম ঝুঁকিতে পড়েছিলেন জয়া আহসান। যদিও তিনি বিষয়টিকে মনে করেন, ‘সার্কাস বলুন আর সিনেমা বলুন, ঝুঁকি আমাদের থাকেই। যেখানে আসলে নিরাপত্তার বালাই নেই। এর মধ্যদিয়েই আমাদের কাজগুলো করতে হয়।’

জয়া জানান, প্রায় দেড় বছর দেশের প্রেক্ষাগৃহে তার নতুন ছবি মুক্তি পাচ্ছে। এরজন্য তিনি আনন্দিত। এটাও জানান, ‘বরাবরই আমি নতুন নির্মাতাদের সঙ্গে থাকার চেষ্টা করি। সেটা আমার ক্যারিয়ারগ্রাফ দেখলেই আপনারা মেলাতে পারবেন। দিদার অসাধারণ একজন আইডিয়াবাজ। ওর যে কোনও কাজের সঙ্গে আমি থাকি বা রাখার চেষ্টা করে আমাকে। ও আমার জন্য অসাধারণ একটি চরিত্র লিখেছে। এটা আমার জন্য অনেক সম্মানের বিষয়।’

খানিক হতাশাও ব্যক্ত করেন দুই বাংলার জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। বলেন, ‘অনেক কাঠ-খড় পুড়িয়ে আমরা এই ছবিটি বানিয়েছি। জানেন তো বাংলাদেশে ছবি নির্মাণ করা…। তাই আজ এখানে দাঁড়িয়ে ভালো লাগছে, কারণ এখন আমরা নিশ্চিত হলাম ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে। হুম, ছবিটি আরও অনেক কিছু হতে পারতো। যেটা হয়েছে সেটাও অনেক বলবো। আশা করছি ছবিটি আপনাদের ভালো লাগবে।’

জয়া জানান, খুব ছোটবেলায় বাবার হাত ধরে কলাবাগান মাঠে একবার সার্কাস দেখতে গিয়েছিলেন। ওটাই প্রথম ও শেষ। এরপর এই ছবির শুটিংয়ে আসল সার্কাস ট্রুপের সঙ্গে তার বসবাস হয়েছে একান্ত ও লম্বা সময় নিয়ে। যা তার জীবনের অনেক বড় অভিজ্ঞতা বলে মনে করেন।

Print Friendly, PDF & Email
 
 
জনতার আওয়াজ/আ আ
 

জনপ্রিয় সংবাদ

 

সর্বোচ্চ পঠিত সংবাদ